বিবাহ বার্ষিকীতে লজ্জায় মাথা হেট হয়ে গেছে: ফারুক আহমেদ

ফারুক আহমেদ
ছবি সংগৃহীত

আজ জনপ্রিয় অভিনেতা ফারুক আহমেদ-এর বিবাহ বার্ষিকী! অনেকেই হয়তো ভাবছেন, নিশ্চয় কোন নাটকের দৃশ্যে! না, নাটক নয়; তবে জীবনের গল্প। সবার মতোই এই অভিনেতার রয়েছে স্ত্রী-সন্তান। খুব স্বাভাবিকভাবেই তারাও পালন করেন জন্মদিন, বিবাহ বার্ষিকী!

আজকের এই বিশেষ দিনটি স্মরণ করে জনপ্রিয় এ অভিনেতা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি দীর্ঘ স্ট্যাটাস দিয়েছেন। সম্মানিত পাঠকদের উদ্দেশ্যে লেখাটি তুলে ধরা হলো।

ছোটবেলায় আমার পরিবারে বিয়ে, জন্মদিন পালনের কোন রেওয়াজ ছিলো না। এর একটা প্রধান কারণ মনে হয় আমরা ছিলাম নিম্ন-মধ্যবিত্ত পরিবার। বাবা ছিলেন ঢাকার সরকারি স্কুলের শিক্ষক। তখনকার দিনে সরকারি স্কুলের একজন শিক্ষকের বেতনই বা কত ছিলো। আমরা চার ভাই-বোন। এই চার ভাই-বোনকে লেখাপড়া করাতে গিয়েই আমার বাবা হিমশিম খেয়ে যেতেন। আবার জন্মদিন, আবার বিবাহ বার্ষিকী! আমার বাবা-মায়ের বিবাহের তারিখ আমি এখনও জানি না।

অর্থাৎ, এসব আমাদের পরিবারের কালচারের মধ্যে ছিলো না। পক্ষান্তরে আমার শ্বশুরকুল ছিলো উচ্চ-মধ্যবিত্ত পরিবার। তাই তাদের পরিবারে জন্মদিন, বিবাহ বার্ষিকী, পুতুলের বিয়ে, বিড়ালের মুখে ভাত এমন নানা ধরনের অনুষ্ঠান পালনের রেওয়াজ ছিলো। বিয়ের আগে আমার নিজের জন্মদিন পালন করা তো দূরের কথা কোন তারিখে আমার জন্মদিন তাই জানতাম না। বিয়ের পর স্ত্রীর কারণে এখন এইসব দিন তারিখ মনে রাখার চেষ্টা করি।

কিন্তু দীর্ঘদিনের কুঅভ্যাসের কারণে বিশেষ দিনটি আাসার আগের দিনই তারিখটি ভুলে যাই। আমার স্ত্রী যখন বিশেষ দিনটির কথা মনে করিয়ে দেয় তখন কৃত্রিম লজ্জায় আমি মাথা নিচু করে থাকি। আজ আমাদের বিবাহ বার্ষিকী। আমি যথারীতি ভুলে গিয়েছিলাম। আমার স্ত্রী রাত ১২টা ১ মিনিটে মনে করিয়ে দিয়েছে আজ আমাদের বিবাহ বার্ষিকী। আমি বরাবরের মতো লজ্জা পাওয়ার ভাব ধরে মাথা নিচু করে রেখেছি। এমন ভাব যেন লজ্জায় আমার মাথা হেট্ হয়ে গেছে।

ফারুক আহমেদ
ছবি সংগৃহীত

আমার স্ত্রী সরল মনের মানুষ। সে আমার অভিনয় ধরতে পারেনি। আমার লজ্জাবনত মস্তক দেখে বললো, থাক লজ্জার কিছু নাই। করোনার সময় বিবাহ বার্ষিকীর কথা মনে না থাকতেই পারে। তাছাড়া আমরা তো করোনার কারণে বাইরে ঘুরতে বা রেস্টুরেন্টে খেতে যেতে পারবো না। আমিও এমনভাব দেখালাম করোনা না থাকলে এই গভীর রাতেই আমি স্ত্রী কন্যা নিয়ে ঘুরতে বা খেতে বের হয়ে যেতাম।

আজ আমাদের বিবাহ বার্ষিকী। আমরা আনন্দ, বেদনায়, মিলনে, বিরহে, সুখে-দুঃখে চমৎকার আছি। সকলে আমাদের জন্য দোয়া করবেন।

জনপ্রিয় এই অভিনেতা বিবাহ বার্ষিকীতে বঙ্গ পরিবারের পক্ষ থেকে জানাই হাজারো ফুলেল শুভেচ্ছা। শুভ বিবাহ বার্ষিকী, প্রিয় দম্পতি!

আরও পড়ুন:

সুপারহিট নাটক দেখুন ইমেজে ক্লিক করে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *