খাওয়ার পরও ক্ষুধাভাব বাড়িয়ে দেয় যে খাবারগুলো!

খাবার | ক্ষুধাভাব বঙ্গ
ছবি সংগৃহীত

খাবার | আমরা মূলত খাবার খাই তিনটি কারণে। প্রথমত ক্ষুধা নিবারণের জন্য, দ্বিতীয়ত আমাদের দেহের প্রয়োজনীয় পুষ্টির চাহিদা পূরণ ও দেহের যাবতীয় কার্যক্রম সঠিকভাবে চলাচলের জন্য। আর তৃতীয়ত, বেঁচে থাকার জন্য।

তবে আপনাকে স্বীকার করতেই হবে, খিদে না পেলেও আমরা খাই। খাবারের প্রতি বাড়তি আকর্ষণ ছাড়াও রক্তে চিনির পরিমাণ কমে যাওয়া কিংবা পানিশূন্যতার মতো আরও অনেক কারণ আছে, যা আমাদের খাওয়ার প্রতি আগ্রহী করে তোলে।

সুুপারহিট নাটক ‍মুভি দেখুন ইমেজে ক্লিক করে

তাই বলতেই পারি, আমাদের ক্ষুধাভাব নিবৃত করতেই খাবার খাওয়া হয়। কিন্তু যদি বলা হয় যে কিছু খাবার এই ক্ষুধাভাবকে আরও অনেকখানি বাড়িয়ে দেয়, তবে হয়তো অনেকেই অবাক হবেন! মূল বিষয়টি হল, কিছু খাবার ফাঁপা ও অস্বাস্থ্যকর ক্যালোরি দ্বারা সাময়িকভাবে ক্ষুধাভাবকে প্রশমিত করে। এতে করে অল্প সময়ের জন্য ক্ষুধাভাব চলে গেলেও পরবর্তীতে তা আরও অনেকটা বেড়ে যায়। জানুন এমন কিছু খাবার সম্পর্কে যা ক্ষুধাভাবকে বাড়িয়ে দেওয়ার জন্য দায়ী।

খাবার | ক্ষুধাভাব বঙ্গ
ছবি: পটেট চিপস

চিপস:

হাতের কাছে অন্য খাবার না থাকায় এক প্যাকেট পটেটো চিপস খেয়ে যদি মনে করেন যে পেট ভরে যাবে, তবে খুবই ভুল। পটেটো চিপস খাওয়ার পর কিছুক্ষণ ক্ষুধাভাব না থাকলেও, পরবর্তীতে অনেক বেশি ক্ষুধাভাব দেখা দেয়। সাথে পানির পিপাসাও বেড়ে যায়।

খাবার | সাদা ভাত  বঙ্গ
ছবি: সাদা ভাত

সাদা ভাত:

সাদা ভাতের উপকারিতার চাইতে ক্ষতি যেমন বেশি, তেমনিভাবে এই ভাত সাময়িকভাবে ক্ষুধাভাবকে প্রশমিত করে মাত্র। কিন্তু দীর্ঘসময়ের জন্য পেট ভরা রাখতে বেছে নিতে হবে ব্রাউন রাইস কিংবা লাল চালের ভাত। এই দুই ধরনের চালে আঁশ থাকে পর্যাপ্ত পরিমাণে, যা ক্ষুধাভাব ঘনঘন দেখা দেওয়া থেকে বিরত রাখে।
খাবার | ফলের জুস
ছবি: ফলের জুস

জুস:

চিনিবিহীন ফলের জুস পান করে অনেকেরই দিন শুরু হয়। অবশ্যই ফলের জুস স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী পানীয়। কিন্তু ফলের জুস পানে খুব অল্প সময়ের মাঝেই পুনরায় ক্ষুধাভাব দেখা দেবে। তাই ফলের জুসের বদলে আস্ত ফল খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তোলা প্রয়োজন। কারণ ফল থেকে প্রয়োজনীয় আঁশ পাওয়া যাবে, যা জুসে থাকে না।

খাবার | ইনস্ট্যান্ট নুডুলস বঙ্গ
ছবি: ইনস্ট্যান্ট নুডুলস

ইনস্ট্যান্ট নুডুলস:

ঝটপট রেঁধে নেওয়া যায় এমন খাবার তৈরির প্রতি ঝোঁক থাকে সবার। এর মাঝে প্রথমেই থাকবে ইনস্ট্যান্ট নুডলস। কিন্তু এতে থাকা মনোসোডিয়াম গ্লুমেট তথা টেস্টিং সল্ট বিভিন্ন ধরনের স্বাস্থ্য সমস্যাসহ হরমনাল ইমব্যালেন্স তৈরির জন্য দায়ী। এছাড়া টেস্টিং সল্ট মস্তিষ্ককে ক্ষতিকর ক্যালোরি দ্বারা সিগন্যাল দেয়, এতে করে অল্প খাবারেই পেট ভরে যায়।

খাবার | সুগার-ফ্রি খাবার
ছবি: সুগার-ফ্রি খাবার

সুগার-ফ্রি খাবার:

আপাতদৃষ্টিতে সুগার ফ্রি খাবার স্বাস্থ্যসম্মত মনে হলেও এই খাবারগুলোতে ব্যবহার করা আর্টিফিশিয়াল সুইটনার চিনির মতোই ক্ষতিকর এবং এমন ধরনের খাবার গ্রহণে সহজেই মনে হয় ক্ষুধাভাব চলে গিয়েছি। কিন্তু আদতে কিছুক্ষণ পর পুনরায় ক্ষুধাভাব দেখা দেয়।
খাবার | সাদা পাউরুটি
ছবি: সাদা পাউরুটি

সাদা পাউরুটি:

সাদা চালের ভাতের মতোই সাদা ও রিফাইন্ড ময়দায় তৈরি পাউরুটি সাময়িকভাবে ক্ষুধাভাবকে দূরে রাখতে কাজ করে। কিন্তু অল্প সময় পরেই পুনরায় ক্ষুধাভাব ফিরে আসে। নাশতায় পাউরুটি রাখতে চাইলে ব্রাউন ব্রেড রাখাই উত্তম।

আরও পড়ুন:

সুপারহিট মুভি, নাটক, ওয়েব সিরিজ দেখুন লিংকে ক্লিক করে: বিনোদন

মজাদার খাবারের রেসিপি দেখুন ইমেজে ক্লিক করে:

রেসিপি  বঙ্গ

One thought on “খাওয়ার পরও ক্ষুধাভাব বাড়িয়ে দেয় যে খাবারগুলো!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *