আপনি কী ডায়াবেটিসে আক্রান্ত?

ডায়াবেটিস বঙ্গ
ছবি সংগৃহীত

ডায়াবেটিস | ক্রমবর্তমান বিশ্বে অনেক মানুষই এখন ডায়াবেটিসে আক্রান্ত কিংবা সবে মাত্র ধরা পড়েছে, তাদের মধ্যে মানসিক চাপ বাড়তে দেখা যায় সবচেয়ে বেশি। কিন্তু, ডায়াবেটিস বিশেষজ্ঞরা ও ডাক্তাররা সেইসব রোগিদের সম্পূর্ণ রূপে চাপ নিতে বারণ করেন।

তাদের প্রাথমিক পরামর্শ হচ্ছে, ‘ডায়াবেটিসের কারণে ভয় পাবার কিছু নেই। এটি একটি অসুস্থতা যেটিকে সহজেই নিয়ন্ত্রণ করা যেতে পারে কিছু শৃঙ্খলা, খাদ্য নিয়ন্ত্রণ, ব্যায়াম এবং ওষুধের মাধ্যমে।’

সুপারহিট মুভি দেখুন ইমেজে ক্লিক করে

এখন আসি মূল কথায়, আপনি কী ডায়াবেটিসে আক্রান্ত? উত্তর যদি হ্যাঁ হয় তবে নিজের স্বাস্থ্য সম্পর্কে বাড়তি সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে এবং এক্ষেত্রে কোন ব্যতিক্রম করা যাবে না। কারণ ডায়াবেটিস থেকে অন্যান্য শারীরিক সমস্যা দেখা দেওয়ার সম্ভাবনা থাকে। এক্ষেত্রে ডায়াবেটিস শনাক্ত হওয়ার সাথে সাথেই চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী খাদ্যাভ্যাস ও জীবনযাপনের ধরণকে নির্দিষ্ট করে নিতে হবে এবং প্রয়োজনীয় ওষুধ গ্রহণ করতে হবে। খেয়াল রাখতে হবে ডায়াবেটিসের মাত্রা যেন কোনভাবে অতিরিক্ত বেড়ে না যায়।

ডায়াবেটিসের সমস্যাটি থেকে নার্ভের ক্ষয়জনিত সমস্যা তথা নিউরোপ্যাথিসহ অন্যান্য বেশ কিছু গুরুতর শারীরিক সমস্যা দেখা দেওয়ার সম্ভাবনা তৈরি হয়। যা অঙ্গপ্রত্যঙ্গের উপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলে দেয়। রক্তে বাড়তি চিনির মাত্রা মূলত এই সমস্যাগুলো তৈরি জন্য দায়ী। এ কারণে ডায়াবেটিস আক্রান্ত রোগীদের খুব কড়াকড়ি নিয়মের মাঝে থেকে রক্তে চিনির মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখার পরামর্শ দেওয়া হয়। আজকের ফিচার থেকে জানুন ডায়াবেটিস থেকে কোন শারীরিক সমস্যাগুলো দেখা দিতে পারে।

হৃদরোগের সমস্যা

ডায়াবেটিসের সাথে ব্লাড প্রেশার ও কোলেস্টেরলের সম্পর্ক রয়েছে। গবেষকেরা তাদের পরীক্ষা থেকে দেখছেন, উচ্চমাত্রার ক্ষতিকর কোলেস্টেরল ইনস্যুলিনের স্বাভাবিক গতিবিধিকে বাধাপ্রাপ্ত করে। যাদের ডায়াবেটিসের সমস্যা রয়েছে, তাদের মাঝে হৃদরোগ জনিত সমস্যাটিও তাই বেশি দেখা যায়। এছাড়া এক পরিসংখ্যান থেকে জানা যায়, অন্তত ৬০ শতাংশ ডায়াবেটিস রোগীর মৃত্যু হয় হার্ট অ্যাটাকের ফলে।

নার্ভজনিত সমস্যা

ডায়াবেটিস থেকে নার্ভের কার্যকারিতা হ্রাস পাওয়ার সমস্যা দেখা দেয়। যাকে বলা হয়ে থাকে নিউরোপ্যাথি (Neuropathy). এই সমস্যাটির দুইটি ধরণ রয়েছে। প্রথম ধরণটি হল পেরিফেরাল- যা পায়ের আঙুল, পা ও হাতে সমস্যা তৈরি করে। অন্যটি হল অটোনমিক- যা খাদ্য পরিপাক, পেটের সমস্যা, ব্লাডার, হৃদরোগ ও যৌন সমস্যা তৈরি করে। নিউরোপ্যাথির কিছু সাধারণ লক্ষণ হল দুর্বলতা, জ্বাপালোড়া করা, অবশভাব অনুভূত হওয়া, ইনফেকশনের সমস্যা দেখা দেওয়া ইত্যাদি।

কিডনিজনিত সমস্যা

ডায়াবটিসের ফলে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয় কিডনি। কিডনির সমস্যাকে বলা হয়ে থাকে নেফ্রোপ্যাথি (Nephopathy). এ সমস্যায় কিডনির ফিল্টার অকার্যকর অথবা ক্ষতির সম্মুখীন হয়। যার ফলে মুত্রের সাথে প্রোটিন বের হয়ে যায়। লম্বা সময় এই সমস্যা চালু থাকার ফলে কিডনির সমস্যা দেখা দেয়। পরিসংখ্যান বলছে, ২০-৪০ শতাংশ ডায়াবেটিস রোগীর কিডনি ফেইল্যুরের সমস্যা দেখা দেয়।

অন্ধত্ব

পূর্ণবয়স্ক মানুষের ডায়াবেটিসের সমস্যা থেকে অন্ধত্ব দেখা দিতে পারে। এই সমস্যাটিকে বলা হচ্ছে রেটিনোপ্যাথি (Retinopathy). ডায়াবটিসের রেটিনার ফলে রক্তনালিকা ক্ষয়প্রাপ্ত হয় এবং রক্ত স্বাভাবিকভাবে প্রবাহিত হওয়ায় বাধার সম্মুখীন হয়। যার ফলে দৃষ্টিশক্তিজনিত সমস্যা দেখা দেওয়া শুরু হয়।

আরও পড়ুন:

স্বাস্থ্য সেবামূলক ভিডিও দেখতে ইমেজে ক্লিক করুন:

2 thoughts on “আপনি কী ডায়াবেটিসে আক্রান্ত?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *